পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা বাড়ান, ৯ টিপসে হয়ে উঠুন আরও স্মার্ট !!

পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা বাড়ানোর ৯ টিপস
পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা বাড়ানোর ৯ টিপস

পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা?

 

পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা দিয়েই আশ্চর্য আশ্চর্য সব সমস্যা সমাধান করা গোয়েন্দা শার্লক হোমস বা ফেলুদার নাম নিশ্চয়ই শুনেছেন? শুধুমাত্র পর্য্যবেক্ষণ দিয়েই অতীত, ইতিহাস বলে দেয়ার ক্ষমতা দেখে কখনো হয়তো ঈরাষাণ্বিতও হয়ে উঠেন আপনি। কিন্তু, আপনি কি জানেন, একটু সচেতনতা, কৌশল আর মাথাটা একটু থাটালে আপনিও হয়ে উঠতে পারেন দুর্দান্ত পর্যবেক্ষণ ক্ষমতার অধিকারী একজন?

 

পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা বাড়ান, ৯ টিপসে হয়ে উঠুন আরও স্মার্ট !!

 

বছরের পর বছর মানুষের ওপর গবেষণার পর পাওয়া তথ্য বিশ্লষণ করে দেখা গেছে, নিচে দেয়া টিপসগুলোর অধিকাংশই সাধারণ মানুষের ওপর কাজ করে।

 

১. কারো সাথে যখন পরিচয় হবে, তখন তার চোখের রং কি তা ভালোভাবে বোঝার চেষ্টা করুন। এই তথ্য আপনার হয়তো কখনোই প্রয়োজন পরবে না। কিন্তু এটা আপনাকে আত্মবিশ্বাসী ও বন্ধুভাবপন্ন হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেবে।

 

২. সাধারণত আমাদের প্রথম ও শেষের ঘটনা খুব ভালো মনে থাকে। আর মাঝের ঘটনাগুলোর বেশিরভাগটাই থাকে অস্পষ্ট। সে কারণে কোনো ইন্টারভিউ বা বক্তৃতায় চেষ্টা করুন সবার প্রথম বা শেষের দিকে থাকতে।

 

৩. অনেক ক্ষেত্রেই মানুষের পা দেখে তার চিন্তাভাবনা সম্পর্কে ধারনা পাওয়া যায়। যেমন ধরুন, দুজন ব্যক্তি কথা বলছে, এমন সময় আপনি সেথানে উপস্থিত হলেন। তারা আপনার দিকে ঘুরে তাকালো কিন্তু তাদের পা আপনার দিকে ঘুরিয়ে দিলো না। তখন নিশ্চিতভাবেই বুঝে নিতে হবে, তারা আপনার সাথে আলোচনায় ইচ্ছুক না। সেক্ষেত্রে আপনার সেখানে না থাকাই ভালো। একইরকমভাবে, যখন আপনি কারো সাথে কথা বলছেন, অথচ তার পা অন্য দিকে ঘোরানো, তখন নিশ্চিতভাবেই ধরে নিন, সে প্রস্থান করতেই বেশি ইচ্ছুক।

 

৪. কেউ যদি আপনার কোনো প্রশ্নের সন্তোষজনক জবাব দিতে না পারে, তখন চুপ থেকে তার চোখের দিকে তাকিয়ে থাকুন। দেখুন, উত্তরদাতা অস্বস্তি পড়ে আরো তথ্য জানাতে বাধ্য হবে।

 

৫. কারো কাছে ছোটোখাটো কোনো বিষয়ে সাহায্য চাওয়া মানে তাকে বিশ্বাস করতে বাধ্য করা যে সে আপনাকে পছন্দ করে।

 

৬. কারো সাথে নতুন পরিচয় হলে তার নাম মনে রাখুন এবং আলোচনার মাঝে প্রায়ই তা ব্যবহার করুণ। এতে অন্যের কাছে আপনি নির্ভরযোগ্য ও প্রিয় হয়ে উঠবেন।

 

৭. যখন কারো সাথে কথা বলবেন, তখন তার শরীরের ভাষার দিকে বিশেষ করে তার চোখ এবং হাত পায়ের নড়াচড়া লক্ষ্য করার চেষ্টা করুন এবং তার সাথে সংগতিপূর্ণ শরীরের ভাষা ব্যবহার করুন। এতে উভয়ের মধ্যে আস্থার সম্পর্ক তৈরি হবে।

 

৮. যখন কোনো জনবহুল জায়গা দিয়ে হাটবেন তখন লোকজনের দিকে তাকিয়ে না থেকে, তাদের মাঝখানের ফাঁকা জায়গা খোজার চেষ্টা করুন এবং চোখ সেদিকেই রাখুন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই লোকজন একটু সরে আপনাকে জায়গা করে দেবে।

 

৯. শীতল সম্ভাষণ বা করমর্দণের পরিবর্তে অন্যের সাথে উষ্ণ এবং আন্তরিক সম্ভাষণ এবং করমর্দন করুন। এতে আপনার প্রতি অন্যের আস্থা ও ভালো লাগা জন্মাবে।

 

আটপৌরে ইজিনে প্রকাশিত সব লেখা ইমেইলে পেতে গ্রাহক হোন

 

মাহবুব আলম

ই-মেইল: contact@atpoure.com

 

2 COMMENTS

  1. ভাই ভাল লাগল, আরো অনেক কিছু পাবো আপনার কাছ থেকে এগিঘে যান………….

    • লেখাটি পড়ার জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ। যুক্ত থাকুন আটপৌরের সাথে, আগামীতেও আরও ভাল লেখা পাবেন।

Leave a Reply