ছেলেদের পায়ের যত্নের ৭টি টিপস

মুখ বা হাতের যত্ন নেয়া হলেও বেশির ভাগ পুরুষই পায়ের যত্ন নিতে চান না। পা শরীরের অংশ নয়- এ ধরণা থেকেই পুরোপুরো অবহেলিত থেকে যায় পা ও পায়ের পাতা। কিন্তু শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় পায়ের ত্বক একটু বেশি রুক্ষ। তাই যত্ন না নিলে চুলকানি, ফোসকা পড়া, ফাংগাল ইনফেকশনের মতো এমন সব চর্মরোগ দেখা দিতে পারে যা আপনাকে জনসম্মুখে ফেলে দিবে অস্বস্তিতে। এছাড়া পায়ের দুর্গন্ধ তো আছেই। তবে সামান্য একটু যত্ন আর সচেতনতা বছর জুড়ে আপনার পা’কে রাখবে সুস্থ আর দুর্গন্ধমুক্ত। চলুন জেনে নেই

ছেলেদের পায়ের যত্নের ৭টি টিপস

 

 

 

foot-care-for-male2দিনে কয়েকবার পা ধৌত করুন

অফিস বা ব্যক্তিগত যে কোন কাজেই ঘর থেকে বেরুনোর সময় ছেলেরা সাধারণত জুতা মোজা পরে বের হন। দীর্ঘ সময় মোজা পড়ার কারণে পায়ের ত্বকে ঘাম হয় যা থেকে সৃষ্টি হয় ব্যাকটেরিয়া।এছাড়া হতে পারে ফাংগাল ইনফেকশন। আর এথেকে পায়ে দুর্গন্ধ হয়। এসব সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সারাদিনে কয়েকবার পা ভালোভালো ধুয়ে মুছে নিন। এতে পায়ের ত্বক ভালো থাকবে।মনে রাখবেন পা মুছে জুতা মোজা পরবেন না।

ফুট পাউডার ব্যবহার করুন

ফুট পাউডার ত্বকের ময়েশ্চারাইজার শুষে নিয়ে ফাংগাল ও ব্যাকটেরিয়া থেকে পা রক্ষা করবে। তার উপর পাউডারের সুগন্ধ আপনাকে রাখবে সজীব ও স্নিগ্ধ। বাজারে বিভিন্ন ধরণের পাউডার পাওয়া যায় যার মধ্যে সুগন্ধি যুক্ত ও সুগন্ধিছাড়া পাউডার রয়েছে। আপনি আপনার পছন্দ মতো পাউডার কিনতে পারেন।

সু’র বদলে স্যান্ডেল পরুন

ততবেশি দরকার না হলে পা খোলা স্যান্ডেল পড়তে পারেন। এতে গরমে পায়ের একটু স্বস্তি মিলবে। এছাড়া স্যান্ডেল পরার কারণে পা’ও ব্যাকটেরিয়ায় আক্রান্ত হবার থেকে রক্ষা পাবে।

পা ম্যাসাজ করুন

যারা সারাদিন দাঁড়িয়ে কাজ করেন বা প্রচুর হাটাহাটি করতে হয় তারা সপ্তাহে অনত্মত একদিন ভালো কোন স্যালুনে গিয়ে ফুট ম্যাসাজ করান। এতে পায়ের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক হয়ে আপনাকে রাখবে সতেজ।foot-care-for-male3

বছরে অন্তত তিনবার মোজা বদলে ফেলুন

আমাদের দেশের অনেক ছেলে ঘন ঘন জুতা বদল করলেও দীর্ঘদিন ব্যবহারের পরও মোজা বদল করতে চাননা। এক্ষেত্রে মোজা থেকে পায়ের নানা রকম রোগ ছাড়াও পায়ে দুর্গন্ধ হয়। তাই বছরের অন্তত তিনবার মোজা বদল করুন।

সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন

আমাদের দেশের বেশিরভাগ ছেলেদের ধারণা সানস্ক্রিন শুধু মেয়েদের ব্যবহারের জন্য। আসলে কিন্তু তা নয়। সানস্ক্রিন সবার জন্য উপকারী। বিশেস করে যারা স্যান্ডেল পরে বের হন তারা অবশ্যই পায়ে এসপিএফ-১৫ সমৃদ্ধ সানস্ক্রিন ব্যহার করবেন। এতে পা থাকবে সূর্যরশ্মিমুক্ত।

জুতার র‌্যাক পরিস্কার রাখুন

সাধারণত পায়ের যে কোন সমস্যার জন্য দায়ী জুতা ও জুতার র‌্যাক।ছেলেদের জুতা ভারী ও বড় হবার কারণে এতে দ্রুত ফাংগাস ও ব্যাকটেরিয়ার জন্ম হয়। সেক্ষেত্রে জুতার র‌্যাক অবশ্যই পরিস্কার রাখুন তা যতো কষ্টই হোক না কেন।মনে রাখবেন দৈনন্দিন ব্যবহারের জুতাও মুঝে পরিস্কার করে রাখুন। আর যেসব জুতা কম পড়া হয় সেগুলো প্যাকেটে তুলে রাখুন।

কাজের ধরণ অনুযায়ী জুতা পড়ুন

আপনার জীবন যাপন ও কাজের ধরণ অনুয়ায়ী জুতা পরুন। যাদের বেশিরভাগ সময় বাইরে কাটাতে হয় তারা হালকা ও আরামদায়ক জুতা বা স্যান্ডেল পরতে পারেন। যারা পেশায় খেলোয়ার বা প্রশিক্ষক তারা কেডস্‌ বা এক্সসারসাইজ সু পড়তে পারেন।

মোট কথা সারাদিন যাই করুন না কেন রাতে বাসায় ফিরে পা অবশ্যই ভালো ভাবে পরিস্কার করে, মুছে তারপর নাইটক্রিম ব্যবহার করুন। যাদের পা ফাঁটা সমস্যা আছে তারা ভেজলিন দিয়ে ১০ মিনিট মোজা পরে থাকুন। এতে ভেজলিন কাজ করবে।

 

 

তাহমিনা তাসির

ই-মেইল: contact@atpoure.com

Leave a Reply