ঘর সাজাতে আপনার পছন্দের রং কোনটা? জেনে নিন ‘ফেং সুই’ কি বলে!

ফেং সুই মেনে রাঙিয়ে তুলুন ঘর

‘ফেং সুই’ বা বাস্তুশাস্ত্র এমনকি খনার বচন মানেন এমন লোকের সংখ্যা কিন্তু নেহাত কম নয়। আবার অনেকে এসব বিশ্বাসকে কুসংস্কার বলে উড়িয়ে দেন। মজার ব্যাপার হচ্ছে ঘর অথবা কর্মক্ষেত্র এই দুই জায়গায় প্রতিটি মানুষকে কাটাতে হয় দিনের দীর্ঘ একটা সময়। যে কারণে এই দুই স্থানের পরিবেশের প্রভাব আমাদের উপর সবেচেয়ে বেশি। আর ফেং সুই বা বাস্তুশাস্ত্র কিন্তু আপনাকে বলে দিতে পারে আপনার জীবনযাপন ও ব্যক্তিত্ব অনুযায়ী কেমন হওয়া উচিত আপনার ‘রং’ এর ব্যবহার।

‘ফেং সুই’ বা বাস্তুশাস্ত্র মেনে রাঙিয়ে তুলুন ঘর

লাল

লাল রংটি বেশ শক্তিশালীভাবেই ফেংসুই বা বাস্তুশাস্ত্রের প্রতিনিধিত্ব করে। টকটকে লাল রং দিয়ে ঘর সাজালে ঘরটির চরিত্রই যেন বদলে যায়। লাল রঙের ঘরটিতে ফুটে উঠে আনন্দ আর উচ্ছাস এর প্রতিচ্ছবি। চৈনিকদের কাছে লাল রং সৌভাগ্য আর আনন্দের প্রতীক। ভারত মহাদেশে বিয়ে ও ভালোবাসার প্রতীক, আর পশ্চিমাদের কাছে এটি সাহস ও দৃঢ়তার প্রতীক।

হলুদ

হলুদ রং ঘরকে রাখে ঝকঝকে। সেই সাথে মনকেও রাখে ভালো। আসলে আমরা যাই করি না কেন তার মূল উদ্দেশ্যই হচ্ছে নিজেদের সুস্থতা আর ভালো থাকা। হলুদ রং শোবার ঘর, রান্না ঘর এমনকি শিশুর ঘরেও অনায়াসে ব্যবহার করা যায়। সূর্যমুখীর মতো গাঢ় হলুদ থেকে শুরু করে হালকা যে কোনো শেড ব্যবহার করে আপনার মনের উচ্ছলতা বাড়াতে পারেন।

নীল

প্রশান্তিময় অনুভূতি জাগাতে ঘরকে সাজান নীল রং দিয়ে। ফেং সুই মতে নীল অসাধারণ একটি রং। আকাশী নীল বা সমুদ্রের নীল, এমনকি গাঢ় নীল যেকোন শেডই বাসা বা অফিস উপযোগী। মজার ব্যাপার হচ্ছে, ফেং সুই অনুযায়ী ঘরের পূর্ব দিকে নীল রং করলে তা আপনাকে সুস্থ রাখবে, দক্ষিণ দিকে নীল থাকলে আপনার সম্পদ বাড়বে আর উত্তর দিকে থাকলে তা আপনার ক্যারিয়ার গঠনে কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

 

সবুজ

সবুজ হচ্ছে স্বাস্থ্য, সম্পদ আর প্রবৃদ্ধির প্রতীক। ফেং সুই মতে সবুজ  হচ্ছে নতুন করে কিছু করার, সতেজ অনুভূতি এমনকি কোনো কিছুর পূর্ণগঠন বোঝায়। ঘরের ভেতর সবুজ রং সব সময় আপনাকে প্রকৃতির কাছাকাছি রাখবে, এতে আপনার মন ভালো থাকবে, আপনি থাকবেন সুস্থ ও সতেজ।

 

কমলা

সামাজিক, উদারতা আর ইতিবাচক মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ ঘটায় কমলা রং। ফেং সুই অনুযায়ী ঘরে কমলা রং করলে ঘরের আলাদা সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলে ঘরকে করে তোলে আরো বেশি প্রশান্তিময়।

 

বেগুনি

বেগুনি রঙটি প্রতিনিধিত্ব করে রাজকীয়, রহস্যময় এবং শান্তির প্রতীক হিসেবে। বেগুনি রংটি শুধু আধুনিক নয়, ঘরে নতুন মাত্রা যোগ করে এটি। শুধুমাত্র ঘরের দেয়ালে নয় বরং এটি আসবাব থেকে শুরু করে সব কিছুতেই ব্যবহার করা যায়। শুধু তাই নয়, এই রং মেডিটেশন বা হিলিং রুমে এই রংয়ের ব্যবহার বেশ কার্যকর।

 

ধুসর

সাধারণত মন খারাপ করা রং হিসেবেই আমরা ধুসর রংটি চিনি। কিন্তু এরও রয়েছে সুন্দর ব্যবহার। এটি আপনার ঘরের যে কোন স্থানে অনায়াসে ব্যবহার করতে পারবেন,  শুধু তাই নয় এটি পশ্চিমাদের কাছে পরিচিত সৃজনশীলতার প্রতীক হিসেবে, দক্ষিণ পশ্চিমাদের কাছে সাহায্যকারী আর দক্ষিণাদের কাছে পরিচিত ক্যারিয়ার গড়তে সাহায্যকারী হিসেবে।

 

কালো

অনেকেই ঘরের দেয়াল বা আসবাবে কালো রং এর আধিক্য পছন্দ করেন না। তবে ফেং সুই অনুয়ায়ী কালো রং গভীরতা, সামর্থ্য আর অসীমতা বোঝাতে ব্যবহার করা হয়।

 

সাদা

শুদ্ধতা, পবিত্রতা, সতেজতা,নিস্পাপ এসব বোঝাতে সবার আগে যে রংটির কথা মনে পড়ে তা হচ্ছে সাদা। সাদা অন্য যে কোন রংকে শুষে নেয়। তাই এ্কই রংকে অনায়াসে যেকোনো স্থানে ব্যবহার করা যায়।

 

বাদামী

সাধারণত ঘরে বাদামী রং এর ব্যবহার আমরা এড়িয়ে চলি। তবে ফেই সুই বলে, এই রং শক্তি, সামর্থ্য, দৃঢ়তা এবং ইতিবাচক মনোভাব প্রকাশের জন্য কার্যকর একটি রং।

 

 

তাহমিনা তাসির

ই-মেইল: contact@atpoure.com

2 COMMENTS

Leave a Reply